বৃহস্পতিবার , 21 নভেম্বর 2019

মাঠে ফসলের খরা মোকাবেলার বিভিন্ন উপায়

খরায় ফসলের যেভাবে ক্ষতি হয় তা নিম্নরূপ:

• বর্ষা মৌসুমের আগেই খরা দেখা দিলে খরিফ ফসলের বীজ বপন দারুনভাবে ব্যাহত হয় যেমন গত বৎসর হয়েছিল ।
• বীজ বপনের পরে খরা দেখা দিলে প্রথম দিকে চারাগুলি প্রথম দিকে ঝিমতে দেখা যায় । পরি সারা দিন নির্জিব হয়ে থাকে এবং গাছ বৃর্দ্ধির হার ভীষণভাবে কমে যায় । খাবার জন্য বৃদ্ধি না পাওয়া এ ধরণের আউশ বোনা আমন ক্ষেতে বৃষ্টির পরই ভাল করে ইউরিয়া সার ছিটিয়ে মাটির সামমিশিয়ে দিতে হবে ।
• এ ছাড়া দীর্ঘদিন ধরে খরা চলিতে থাকলে চারাগুলো ধীরে ধীরে মরে যায় ।
• গাছ বৃদ্ধির বিভিন্ন স্তরের উপর খরার ফলাফল নির্ভর করে ।গাছ গোছা ছাড়ানো বা কুশি গজানোর সময় ফুল আসার সময়,ফুল ও ড়ালা গজানোর সময় শস্যদানা বৃদ্ধি পাওয়ার সময় খরায় আক্রান্ত হলে সবচাইতে বেশী ক্ষতি হয়ে থাকে। ভিন্ন ভিন্ন রকম ফসলের জন্য পর্যায়গুলো ভিন্ন ভিন্ন সময়ে থাকে । বিভিন্ন তারিখে বীজ বোনার ফলে গাছের বৃদ্ধির স্তরও ভিন্ন হয়ে থাকে । ফলে একটি ছোট এলাকায় ও একই রকম জমিতে খরার ক্ষতি ভিন্ন ভিন্ন রকম হতে পারে ।

শুকনা জমির ফসলের জন্য গভীর দেআঁশ মাটিতে খরা কম দেখা দেয় । মাটির নীচে ছাকাছি পানির স্তর না থাকলে অগভীর মাটি,বালু মাটি এবং এটেল মাটিতে দোআঁশ মাটির চাইতে তাড়াতাড়ি খরা দেখা দেয় ।

খরা হতে রক্ষার উপায়
একমাত্র সেচের মাধ্যমে খরা পুরোপুরি মোকাবেলা করা সম্ভব । খরা শুরু হলেই সেচের ব্যবস্থা আগের থেকেই প্রস্ত্তত রাখতে হবে , যাতে পাওয়ার পাম্প,নলকুপ ,পাতাকুয়া,হাতে চালিত পাম্প,দোন ইত্যাদির ব্যবস্থা করতে বেশী দেরী না হয় । এ ছাড়া যে সব ব্যবস্থার কথা বলা হলো এগুলো সময় করতে পারলে খরার ক্ষতি অনেকখানি কমিয়ে আনা সম্ভব হবে বলে আশা করা যায় ।

BIGTheme.net • Free Website Templates - Downlaod Full Themes